logo
খেলার মাঠেও জলবায়ুর প্রভাব

উপরে যে ছবিটি আপনি দেখছেন, সেটা কোন ক্রিকেট পিচের ছবি নয়। গরমে ফেটে চৌচির হয়ে যাওয়া মাটির ছবি।

ক্রীড়াপ্রেমীদের প্রধান প্রতিপক্ষ এখন কোভিড-১৯। কারণ কোভিডের প্রভাবে ফুটবল ক্রিকেট ম্যাচ তো আছেই, অলিম্পিকের মত আসরও বাতিল হয়েছে । কিন্তু ক্রীড়াপ্রেমীরা খেলাধুলায় পরিবেশ বিপর্যয়ের প্রভাব সম্বন্ধে খুব একটা খবর রাখেন না। পরিবেশবিদরা বলছেন, সামনের দিনগুলোতে প্রতিটি খেলা, প্রতিটি স্টেডিয়াম জলবায়ুর প্রভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হবে। চলুন জেনে নেই খেলার মাঠে জলবায়ু প্রভাবের কিছু ঘটনাঃ

গরমে মাঠের বাইরে জো রুট

সিডনীতে আশেজ চলাকালীন, পঞ্চম দিন তাপমাত্রা দাঁড়ায় ৫৭ ডিগ্রী সেলসিয়াস। জো রুটকে পানি শূণ্যতার কারণে হাসপাতালে ভর্তি হতে হয়। আবার ইংল্যান্ডে বৃষ্টির কারণে ২০০০ সাল থেকে এই পর্যন্ত ২৭% ম্যাচ পূর্ণ ওভার খেলা হয়নি।

ফুটবল বিশ্বকাপের সময় পরিবর্তন

সব দেশের লীগের সূচীর সাথে মিল রেখে ফুটবল বিশ্বকাপ জুন-জুলাই মাসেই অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে। কিন্তু সে সময়ে আয়োজক দেশ কাতারে অত্যাধিক গরমের কারণে ২০২২ বিশ্বকাপ প্রথা ভেঙ্গে নভেম্বর-ডিসেম্বর মাসে অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে।

অলিম্পিকেও হানা

বলা হচ্ছে, ২০২১ টোকিও অলিম্পিক ক্রীড়াবিদদের জন্য ইতিহাসের সবেচেয়ে কঠিন অলিম্পিক হবে। বিশেষ করে দূরপাল্লার ইভেন্ট যেমন ম্যারাথন রানারদের জন্য খুবই কঠিন হবে। তাপের প্রভাব কমাতে অলিম্পিক কমিটি পুরো ম্যারাথন ট্র্যাকে বিশেষ ব্যবস্থা নি্তে যাচ্ছে।

130204125705-2014-winter-olympics-in-sochi-russia-7-horizontal-large-gallery

 

ইউ এস ওপেন ২০১৮

ইউ এস ওপনে নোভাক জোকোভিচ ম্যাচ চলাকালীন অত্যাধিক গরমে অসুস্থ হয়ে পরেন। এছাড়াও আরও ৪ জন খেলোয়াড় অসস্থ হয়ে মাঠ ছাড়েন।

শীতকালীন অলিম্পিক কি হারিয়ে যাবে?

গবেষকেরা বলছেন, ২০৫০ সাল নাগাদ বৈশ্বিক উষ্ণয়ানের প্রভাবে, যে ২১টি শহরে শীতকালীন অলিম্পিক হয়েছে তার অর্ধেক শহর এই অলিম্পিক আয়োজনের জন্য যথেষ্ঠ ঠান্ডা থাকবে না। আর ২০২৮০ সাল নাগাদ মাত্র ৪টি শর এই আয়োজনের উপযুক্ত থাকনে; কানাডার ক্যালগারি, চীনের বেইজিং, ফ্রান্সের আলবার্টভিল এবং যুক্তরাষ্ট্রের সল্ট লেক সিটি।

বন্যার পানিতে ভেসে গেল ফুটবল ম্যাচ

২০১১ সালে ন্যাপলসে আকস্মিক বন্যায় নাপোলি ও জুভেন্টাসের ম্যাচ পরিত্যক্ত ঘোষণা করা হয়।

একজন খেলোয়াড়ের দায়িত্ব শুধু ম্যাচ জিতানোই না বা ভাল খেলা নয়। এর বাইরেও তার অনেক দায়িত্ব আছে। আমরা চাইলে আমাদের চারপাআশে পরিবেশ রক্ষায় ভূমিকা রাখতে পারি। এবং সবাইকে সচেতন করতে পারি।